ধারক বা ক্যাপাসিটর (capacitor)

🎉স্বাগতম সবাইকে ইলেক্ট্রোম্যাথ এর পক্ষ থেকে…  “সেমিকন্ডাক্টর ডিভাইস” এই কোর্সে আমরা,​ ধারক বা ক্যাপাসিটর ( capacitor ) সম্পর্কে জানার চেষ্টা করব।

ধারক বা ক্যাপাসিটর (capacitor)

⚛ ক্যাপাসিটর – ধারক অর্থাৎ বৈদ্যুতিক চার্জ সংরক্ষণকারী। এটি সার্কিটের বৈদ্যুতিক চার্জকে সংরক্ষণ করে রাখে।

⚛ গঠন – ক্যাপাসিটরের ভিতরে দুইটি পরিবাহী পাত বা টার্মিনাল থাকে। এই দুইটি পরিবাহীর মাঝেখানে একটি ডাই-ইলেকট্রিক অপরিবাহী পদার্থ নিয়ে গঠিত হয় একটি ক্যাপাসিটর। পরিবাহী পাতটি হতে পারে অ্যালুমিনিয়াম , সিলভার, ট্যান্টালুম,  অন্য যে কোন পদার্থের। এবং ডাই-ইলেকট্রিকটি এমন একটি পদার্থ হতে পারে- কাঁচ, সিরামিক, প্লাস্টিক বা শুধুই বাতাস, ইত্যাদি। এই ডাই-ইলেকট্রিকটি বৈদ্যুতিক চার্জকে সংরক্ষণ করার কাজে সাহায্য করে।

⚛ ধারকত্ব – ক্যাপাসিটরের ক্যাপাসিট্যান্স কয়েকটি  জিনিসের উপর নির্ভর করে যেমন- দুই পাতের মধ্যকার দূরত্ব, ডাই-ইলেকট্রিক, ক্যাপাসিটর এর এরিয়া/ক্ষেত্রফল , ক্যাপাসিটেন্স ইউনিট, দুই পাতের  বিভব পার্থক্য, এবং তড়িৎ/কারেন্ট এর মান উপরে। এত কিছুর উপর ভিত্তি করে ক্যাপাসিটরের ধারকত্ব আমরা যদি বের করতে চাই তাহলে খুবই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়বে! তবে একটি ক্যাপাসিটরের ধারকত্ব বের করার আরেকটি সহজ নিয়ম হচ্ছে। ক্যাপাসিটর এর দুই পাতের বিভব পার্থক্যে কতটুকু চার্জ সংরক্ষণ করতে পারছে। অর্থাৎ, ধারকের পাতদ্বয়ে চার্জের পরিমাণ যথাক্রমে +Q ও -Q এবং পাতদ্বয়ের বিভব পার্থক্য V হয়, তাহলে তার ধারকত্ব হবে {\displaystyle C={\frac {Q}{V}}} ( ধারকত্বের এসআই একক হল ফ্যারাড। ১ ফ্যারাড = ১ কুলম্ব প্রতি ভোল্ট )

চিত্রঃ ইলেকট্রোলাইটিক ক্যাপাসিটর

উপরে একটি ক্যাপাসিটরের গায়ে C/ ধারকত্ব লেখা আছে ১০০০µf  অর্থাৎ সর্বোচ্চ 35 ভোল্টে ১০০০ মাইক্রোফ্যারাড চার্জ সংরক্ষণ করে রাখতে পারবে।

⚛ প্রকারভেদ- সাধারণত ক্যাপাসিটর দুই ধরনের হয়ে থাকে যেমন- পোলারাইজড ক্যাপাসিটর, নন-পোলারাইজড ক্যাপাসিটর, এই দুই ধরনের ক্যাপাসিটর এর মধ্যে কিছু ক্যাপাসিটর আছে যেগুলো কনস্ট্যান্ট ও ভেরিয়েবল হয়ে থাকে।

চিত্রঃ পোলারাইজড  এবং নন-পোলারাইজড ক্যাপাসিটর

সার্কিট এ বিভিন্ন ধরনের ক্যাপাসিটর ব্যবহার হয় থাকে যেমন-

  • ইলেকট্রোলাইটিক ক্যাপাসিটর: উচ্চ ধারকত্ব-র জন্য এই ধারক সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়। রেডিও-র ফিল্টার বাইপাস সার্কিটে ব্যবহৃত হলেও AC সার্কিটে ব্যবহার করা যায় না।
  • সিরামিক ক্যাপাসিটর: এতে সিরামিক ডাই-ইলেক্ট্রিক হিসেবে ব্যবহৃত হলেও এদের ধারকত্ব খুবই কম। মাত্র 1pF থেকে 100pF এবং সর্বোচ্চ সহনীয় ক্ষমতা ৫০০ ভোল্ট পর্যন্ত। মূলত কাপলিং-ডিকাপলিং বাইপাস সার্কিটের এটি ব্যবহৃত হয়।
  • পরিবর্তনশীল বায়ু ক্যাপাসিটর: এর মান প্রয়োজনমত বাড়ানো এবং কমানো যায়। এতে অনেকগুলো অর্ধবৃত্তাকার সমান্তরাল অ্যালুমিনিয়ামের পাত দুভাগে ভাগ করে বসান থাকে। পাতগুলোর মাঝে বায়ু ডাই-ইলেক্ট্রিক মাধ্যম হিসেবে কাজ করে। টিউনিং সার্কিট হিসেবে এদের ব্যবহার করা হয়।

চিত্রঃ বিভিন্ন ধরনের ক্যাপাসিট এর বাস্তব চিত্র

Overview over the most commonly used fixed capacitors in electronic equipmentচিত্র ক্যাপাসিটরের পরিবারের সদস্যবৃন্দ

এই পোষ্টের বাকি অংশ, এখনো লেখা হয়নি