রোধ বা রেজিস্টেন্স ( Electrical Resistance )

🎉স্বাগতম সবাইকে ইলেক্ট্রোম্যাথ এর পক্ষ থেকে…  “বৈদ্যুতিক শক্তির পরিচয়” এই কোর্সে আমরা,​ রোধ বা রেজিস্টেন্স ( Electrical Resistance )​সম্পর্কে জানার চেষ্টা করব।

⚛ রোধ বা রেজিস্টেন্স – পরিবাহীর মধ্য দিয়ে ইলেকট্রন প্রবাহের বাধাকে রোধ বা রেজিস্টেন্স বলে।

⚛ অন্যভাবে বলা যায়, পরিবাহীর যে ধর্মের কারণে কারেন্ট প্রবাহের বাধা সৃষ্টি করে করে তাকে রেজিস্ট্যান্স বলে।

⚛ চিত্র-১ রেজিস্টেন্স ছাড়া তারের মধ্যে দিয়ে ২৮.৬ মিলি এম্পিয়ার কারেন্ট প্রবাহিত হচ্ছে।

⚛ চিত্র-২ রেজিস্টেন্স ব্যবহার করার ফলে তারের মধ্যে দিয়ে ৭.৯১ মিলি এম্পিয়ার কারেন্ট প্রবাহিত হচ্ছে।

⚛ বিশেষ দ্রষ্টব্য- রেজিস্ট্যান্স বাড়লে কারেন্টের প্রবাহের হার হ্রাস পায়।

⚛ রোধ বা রেজিস্ট্যান্স নির্ণয়- আমরা যদি কোন সার্কিটের রেজিস্ট্যান্সের মান বের করতে চাই, তাহলে ওই সার্কিটের ভোল্টেজ এর সাথে প্রবাহিত কারেন্টের মানকে ভাগ করে দিতে হবে। অর্থাৎ …

চিত্র: সার্কিটের রেজিস্ট্যান্স নির্ণয় করার পদ্ধতি

আজকে এ পর্যন্তই ইলেকট্রনিক্সের সকল আগ্রহী প্রতি রইল শুভ কামনা ধন্যবাদ সবাইকে!